সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

Ranna_Ghar.jpg

পরামর্শ রান্নাঘর ভালো রাখার কিছু সহজ উপায়

গৃহিনীরা যে জায়গায় অর্ধেকের বেশি সময় কাটান, সেই রান্নাঘরটা ভালোভাবে পরিষ্কার রাখুন। এতে করে আপনার পরিবারের প্রত্যেকটি সদস্যও খুব ভালো থাকবে।

বাড়ির অন্যতম প্রধান বা গুরুত্বপূর্ণ জায়গা হলো রান্নাঘর। গৃহিনীদের সারাদিনের অর্ধেকের বেশি সময় কাটাতে হয় এখানে। রান্নাঘরে বাজে গন্ধ হয় না, এমন বাড়ি খুঁজলেও মিলবে না। বাথরুমের পরেই যেন সবচাইতে দুর্গন্ধময় স্থান হচ্ছে রান্নাঘর। যতই পরিষ্কার করুন না কেন, একটা বাজে গন্ধ থেকেই যায়। আর রান্নাঘর পরিষ্কার না থাকলে, তার প্রভাব পড়বে খাবারে, যার ফলে স্বাস্থ্যের ওপরেও পড়বে নেতিবাচক প্রভাব।

তাই শুধু রান্না করলেই হবে না, জানতে হবে রান্নাঘর দুর্গন্ধ মুক্ত রাখার উপায়। খুব সহজে রান্নাঘরের দুর্গন্ধ দূর করার কিছু উপায় দেওয়া হলো-
  • রান্নঘরে ময়লার ঝুড়ি ব্যবহার করবেন তা স্বাভাবিক, কিন্তু ঝুড়িটা যেনো হয় ঢাকনাযুক্ত। তাহলে বাজে গন্ধটা পুরো বাড়ি ছড়ানোর আশংকা কম থাকবে।
  • বাজার থেকে আনা মাছ-মাংস ইত্যাদির কাঁচা অবশিষ্ট অংশ ফেলার ক্ষেত্রে প্ল্যাস্টিক বা কাগজের প্যাকেট ব্যবহার করবেন। প্যাকেটের ওপরের অংশটা মুড়ে তবেই ময়লার ঝুড়িতে ফেলবেন। আর যদি ময়লার ঝুড়ি ঢাকনাবিহীন হয়, তবে মাছ-মাংসের অবশিষ্ট হবার পর তা মুড়ে ফ্রিজের ডিপের মধ্যে রেখে দিন। ময়লা নেওয়ার সময় তা ফ্রিজ থেকে বের করে দিয়ে দিন। এতে বাজে গন্ধ থেকে দূরে থাকবে বাড়ি।
  • রান্নাঘরে দুর্গন্ধ হওয়ার আরেকটি কারণ হতে পারে স্পঞ্জ। যেটি আপনি রান্নঘরে থালা-বাসন মাজার ক্ষেত্রে ব্যবহার করেন। এটি প্রত্যেক সপ্তাহে পরিবর্তন করে নিন। অথবা প্রতিদিন ব্যবহারের পর তা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।
  • যেকোনো গন্ধ দূর করার ক্ষেত্রে বেকিং সোডা অনেক উপকারি। তাই রান্নাঘর পরিষ্কারের সয়ম পানির সঙ্গে বেকিং সোডা মিশিয়ে তারপর পরিষ্কার করুন। এতে রান্নাঘরের বাজে গন্ধ একবারে গায়েব হয়ে যাবে।
  • প্রায়ই রান্নাঘরে একটা ভ্যাপসা গন্ধ হয়ে থাকে। তাই এই সময় রান্নাঘর তাজা রাখতে আপনি একটি কাজ করতে পারেন, তা হলো- কয়েক টুকরো দারুচিনি, লেবু বা কমলার খোসা পানিতে মিশিয়ে জ্বাল দিতে পারেন। এগুলো যখন ফুটে উঠবে তখন দেখবেন ঘরে দারুণ গন্ধ ছড়াচ্ছে। 
  • রান্নাঘরের বাজে গন্ধ দূর করার জন্য আরো একটি কাজ করা যায়, তা হলো- রান্নাঘরের যেকোনো এক জায়গায় একটি খোলা বাটিতে বেকিং সোডা বা ভিনেগার রাখতে পারেন। এগুলো গন্ধ শুষে নিবে।
  • রান্নাঘরে ব্যবহারের জন্য পছন্দের ফ্লেভারের এয়ার ফ্রেশনার অবশ্যই কিনে নেবেন। এর মাধ্যমেও গন্ধের হাত থেকে মুক্তি পেতে পারেন।
  • বাড়ির এমন জায়গায় রান্নাঘর তৈরি করুন যেখানে পর্যাপ্ত আলো বাতাস চলাচলের ব্যবস্থা থাকে। রান্নার ধোঁয়া যেন বের হয়ে যেতে পারে, সেই ব্যবস্থাও অবশ্যই থাকতে হবে।
  • ভাজা-পোড়ার পুরোনো তেল জমিয়ে রাখবেন না। তেল চিটচিটে কিছুই জমিয়ে রাখবেন না রান্নাঘরে।
  • পরে ধোয়ার জন্য বেসিনে থালা বাসন জমিয়ে রাখবেন না। অন্তত পক্ষে আগে একটু পানি দিয়ে ধুয়ে তারপরে মাজার জন্য রাখুন।
  • যদি পারেন তবে ১৫ দিন পর পর না পারলে মাসে একদিন রান্নাঘর গরম পানি ও ডিটারজেনট দিয়ে অবশ্যই পরিষ্কার করুন।
ওপরের কয়েকটি উপায়ে ভালো রাখতে পারেন আপনার রান্নাঘর। রান্নাঘর ভালো থাকলে পরিবারের সকলের স্বাস্থ্যও ভালো থাকবে।

এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

মাছ-মাংস, দুর্গন্ধ, ময়লা, গৃহিনী, পরিচ্ছন্ন, পরিস্কার, রান্নাঘর