সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

ঘরেই তৈরী করুন মজাদার কুলফি

প্রচণ্ড গরমে একটি কুলফি... ভাবতেই ভালো লাগে। আর তা যদি হয় স্বাস্থ্যকর ও ঘরে বানানো তাহলে তো আর কথাই নেই। চলুন জেনে নেই কিভাবে বানাতে হবে মজাদার এই কুলফি...

ঐতিহ্যবাহী কাউনের পায়েস

একটা সময় কাউন গ্রাম বাংলার বেশ পরিচিত ছিলো। এটি এক ধরনের শস্যদানা। অনেকেই ছোটবেলায় কাউনের পায়েসও হয়ত খেয়েছেন। কিন্তু কালের বিবর্তনে হারিয়ে গেছে কাউন। এখন আ...

ছোলার ডালের হালুয়া

হালুয়ার কথা শুনলেই মুখে জল চলে আসে। ছোলার ডাল রান্না, ছোলা ভাজি, ছোলার ডালের বেসন দিয়ে বেগুনি, ছোলার ডালের বড়া, সব খাবার গুলোই অনেক টেস্টি। কাঁচা ছোলা শরীরের জন্য অনেক পুষ্টিকর। সকালে খালি পেটে ১ মুট ভিজানো কাঁচা ছোলা খেলে বিভিন্ন অসুখ-বিসুখ থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যায় এবং শরীরে শক্তি বাড়ে। সকালের নাস্তায় হালুয়া রান্না পরিবারে পরিবেশন করতে পারেন। উপকরনঃ ছোলার ডাল, ঘি, দুধ, চিনি, গোলাপ জল, কিসমিস, পেস্তা বাদাম কুচি, এলাচ, গুড়া, এলাচ, লবঙ্গ ও দারচিনি। প্রনালীঃ প্রথমে একটি পাত্রে দুধ নিন এবং দুধের মধ্যে এলাচ, লবঙ্গ, দারচিনি ও পরিমান মত...

ছানার সন্দেশ

সন্দেশ আমরা বাঙ্গালীরা খুব পছন্দ করি। যারা মিষ্টি কম পছন্দ করে তাদের কাছেও সন্দেশ ভাল লাগে। আর ছানার সন্দেশ, সে তো অনেক মুখরোচ...

স্পেশাল ছোলার ডালের বরফি

এবার রোজায় ইফতারিতে পরিবারের জন্য কি কি খাবার তৈরী করবেন, এটা চিন্তা করে অনেকে হয়তো বিভিন্ন পদের ইফতারির তালিকা তৈরী করেছেন। তবে ছোলা, মুড়ি ও পিয়াজ...

গাজরের হালুয়া

কাঁচা গাজর দিয়ে খুব সহজেই, কম সময়ে করে ফেলা যায় মজাদার এই হালুয়াটি। গাজর কুচি: ৩ কাপঘি: ১/২ কাপচিনি: ১ ১/২ কাপএলাচ: ৪ টাজাফরান: অল্পগোলাপজল: ১ টেবিল চামচগ...

স্পেশাল ক্রিস্পি ওয়াটারমিলন বার

বাজারে অনেক ধরনের এনার্জি বার প্যাকেটজাত অবস্থাতে পাওয়া যায়। তবে আমরা চাইলে ঘরেই কিন্তু তৈরি করতে পারি মজাদার এক ধরনের এনার্জি বার, যা তৈরি হয় হা...

স্পঞ্জের রসগোল্লা

মিষ্টি কম বেশি সবারই পছন্দের খাবার।  আর কোন অনুষ্ঠান বা খুশির খবর তো মিষ্টি ছাড়া চলেই না। কিন্তু দোকানের মিষ্টি খেতে একঘেয়েমি চলে আসলে বাসায় খুব সহজে...

নাটোরের কাঁচাগোল্লা

নাটোরের কাঁচাগোল্লা  আমাদের দেশের  ১টি  অত্যন্ত জনপ্রিয় মিষ্টি যা শুধু মাত্র নাটোরেই পাওয়া যায়। তাই বলে নাটোর যেতে পারছেন না বলে কাঁচা...

প্যান কেক

উপকরনঃ ময়দা – ১ পোয়া, চিনি – ২ টেবিল চামচ, বেকিং পাউডার – ২ চা চামচ, ডিম – ১ টি, লবণ – ৩/৪ চা চামচ, দুধ মৃদু গরম – ৩/৪ কাপ, সয়াবিন তেল বা ঘি – ৩ টেবিল চামচ। প্রনালীঃ প্রথমে ময়দা, বেকিং পাউডার, লবণ ও চিনি একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। তারপর ডিম, দুধ ও ঘি একসঙ্গে পেষ্ট করুন। এবার ময়দায় মিশানো দুধ ঢেলে আলতোভাবে নেড়ে মিশিয়ে নিন। এরপর ফ্রাইপ্যানে বা তাওয়া গরম করে মৃদু আঁচে আধাকাপ গুলানো ময়দা ফ্রাইপ্যানে ঢেলে দিন। ময়দার উপর বুদবুদ উঠলে প্যানের কেক উল্টিয়ে দিন। নীচের দিকে বাদামী রং হেলে চুলা থেকে নামিয়ে ফেলুন। মজাদার এই খাবারটি সিরাপ বা মধু দিয়ে প...

চালকুমড়ার চিনি জমানো মোরব্বা

উপকরনঃ চুনপড়া চালকুমড়া – ২ কেজি, চিনি – ৪ কেজি, চুন – সামান্য, খাওয়ার সোডা – ১ চা চামচ। প্রনালীঃ প্রথমে পাকা চুনপড়া চালকুমড়ার খোসা ছাড়িয়ে চার ফালি করে কেটে নিন। বীচির নরম অংশ কেটে ফেলে লম্বা সাইজের বড় টুকরা করে নিন। তারপর কাটা চামচ বা খেজুর কাটা দিয়ে কেচে নিন। পানিতে চুন মাঠার মত গুলে ৩-৪ ঘন্টা ভিজিয়ে রাখুন। চুনের পানি থেকে তুলে কুমড়া ভাল করে ধুয়ে নিন। এবার ডুবো পানিতে কয়েক মিনিট সিদ্ধ করে চুলা থেকে নামিয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। এরপর চিনির মধ্যে পানি মিশিয়ে সিরা তৈরি করে নিন। তারপর চালকুমড়া দিয়ে চুলায় আচ দিতে থাকুন। ৩-৪ ঘন্টা চুলায় আচ ...

গাজর ও ফুলকপির পায়েস

ঈদ মানে আনন্দ আর এই আনন্দকে আরও মধুময় করে তুলতে বাংগালীর সবার ঘরে ঘরে সেমাই, রুটি, মিষ্টি, পায়েস ও বিভিন্ন রকমের মিষ্টান্ন তৈরি করে থাকে। সকালে সবাই মিষ্টি খেয়ে শুরু করে ঈদের দিনটি। তারপর সারাদিনই গোশত পোলাও সাথে থাকে ঈদের বিভিন্ন মিষ্টান্ন আইটেম। বিভিন্ন মিষ্টান্ন আইটেমের মধ্যে গাজর ও ফুলকপির পায়েস আইটেমটি আপনি তৈরি করতে পারেন। এই আইটেমটি অনেক সুস্বাদু ও লোভনীয়। উপকরনঃ পোলাও এর চাল আধা কেজি, চিনি ১ পোয়া, ছোট ফুলকপি অর্ধেক, গাজর ৩ টি, দুধ দেড় কেজি, কনডেন্সড মিল্ক ১ কৌটা, কিশমিশ ৫-৬ টা, পেস্তাবাদাম কুচি ৩ চা চামচ, গোলাপ জলের পানি ১ চা চামচ,...

চমচম

মিষ্টির মধ্যে অন্যতম একটি মিষ্টি হল চমচম যা বিয়ের বাড়ি থেকে শুরু করে সব অনুষ্ঠানেই মানানসই।যারা মিষ্টি খেতে পছন্দ করেন তাদের কাছে যে কোন মিষ্টি খেতে ভাল লাগে। কেউ গাঢ় মিষ্টি খায় আবার কেউ হালকা মিষ্টি খেতে পছন্দ করে। নিজের হাতে বানানো মিষ্টি নিজের ইচ্ছামত ও নির্ভেজাল ভাবে বানানো যায়। তাই ছুটির দিন বেশি করে বানিয়ে ফ্রিজে রেখে দিন। উপকরনঃ ময়দা-৪ টেবিল চামচ, চিনি ১ কেজি, ছানা-৪ কাপ, বেকিং পাউডার ১ চা-চামচ, গুড়া দুধ ৪ টেবিল চামচ। প্রনালীঃ প্রথমে পরিমান মত পানি ও চিনি চুলায় দিয়ে সিরা তৈরি করে নিন। এবার অন্য একট পাত্রে ময়দা, ছানা, বেক...

কচি লাউয়ের সেমাই

সবজি দিয়ে সেমাই রান্না করা যায় এটা খুব কম মানুষই জানে। লাউ এমন একটি সবজি যা দিয়ে অনেক আইটেমের খাবার রান্না করে খাওয়া যায়। তেমনি কচি লাউ দিয়ে সেমাই রান্না অনেক মজাদার ও সুস্বাদু খাবার। খুব অল্প সময়ে নতুন এই আইটেমটি আপনার পরিবারে পরিবেশন করতে পারেন। উপকরনঃ কচি (বিচি হয় নাই) ছোট লাউ ১ টি, দুধ ১ কেজি, চিনি আপনার পরিমান মত, দারচিনি, লবঙ্গ ও সয়াবিনের তেল। প্রনালীঃ প্রথমে কচি লাউ কুচি কুচি করে কেটে লবণ দিয়ে মাখিয়ে রাখুন ২০ মিনিট। এবার একটি পাত্রে দুধ গরম করে গাঢ় করে নিন। লবণে মাখানো লাউ ভাল করে ধুয়ে হাত দিয়ে চিপে পানি ঝড়িয়ে দিন যেন এ...

ছানার সন্দেশ

সন্দেশ ছোট বড় সবার কাছেই লোভনীয় একটা খাবার। খুব অল্প সময়ে পরিবারে এই লোভনীয় আইটেমটি পরিবেশন করতে পারেন। বিকেলে নাস্তায় মজাদার ছানার সন্দেশ পরিবেশন করতে পারেন। উপকরনঃ ছানা ৪ কাপ, কনডেন্স মিল্ক ১ কাপ, মাওয়া গ্রেট করা ২ কাপ, দুধের ক্ষীর ১ কাপ, আইসিং সুগার ৩ কাপ ও কিসমিস। প্রনালীঃ প্রথমে একটি পাত্রে কিসমিস বাদে উপরের সব উপকরন এক সাথে দিয়ে চুলায় আঁচ দিতে থাকেন। চুলার আঁচ আস্তে দিয়ে বার বার নাড়তে থাকুন। শুকনা ও আঠা আঠা হয়ে এলে চুলার আঁচ কমিয়ে নামিয়ে ফেলুন। অন্য আরেকটা পাত্রে ঠান্ডা করে চার কোণা বা ৩ কোণা করে কেটে তার ওপর একটা করে ...

পেঁপের হালুয়া

পেঁপের হালুয়া অনেক সুস্বাস্থ্য ও লোভনীয় একটা খাবার। খুব সহজে ও অল্প সময়ে আপনি পেঁপের হালুয়া বানিয়ে পরিবারে পরিবেশন করতে পারেন। তাহলে ঝামেলা বিহিন এই আইটেম টি এখনি তৈরি করুন পরিবারের সবার জন্য। উপকরনঃ পেঁপে, চিনি, লবন, তেজপাতা, দারচিনি, এলাচ ও সয়াবিনের তেল। প্রনালীঃ প্রথমে পেঁপে টুকরা করে কেটে ভাল করে ধুয়ে নিন। এবার প্রেসার কুকার এ মধ্যে দিয়ে সিদ্ধ করে নিন। পেঁপে সিদ্ধ হয়ে গেলে চামচ দিয়ে ভাল করে পেস্ট করে নিন এবং চুলায় আরেকটি পাত্র দিয়ে পরিমান তেল দিন। তারপর তেলে মধ্যে দারচিনি, তেজপাতা ও এলাচ দিয়ে একটু নেড়ে পেস্ট করা পেঁপে ঢেলে দি...

চিজ কেক

কেক ছোট বড় সবারই প্রিয় খাবার। বিশেষ করে ছোটরা কেক খাবার জন্য যেন বাহানা খোঁজে। ঘরে কেক বানিয়ে রেখে দিলে এটি বাচ্চাদের স্কুলের টিফিন থেকে শুরু করে অতিথি আপ্পায়নে আপনাকে সহযোগিতা করবে। বেক তৈরির উপকরণ : বিস্কুটের গুড়া - ২ কাপ, মাখন - ৫০ গ্রাম, পানি - ১ টেবিল চামচ, গুড়া চিনি - ১ টেবিল চামচ। ফিলিং তৈরির উপকরণ : ছানা - ২ কাপ, ময়দা - ১ টেবিল চামচ, ডিম - , গুড়া চিনি - ৩/৪ কাপ , কন্ডেসক মিল্ক - ১/৪ কাপ, লেমন রাইন্ড - ২ টেবিল চামচ, কুকিং চকলেট - ১/৪ কাপ। টপিং এর উপকরণ: কুকিং চকলেট - ২০০ গ্রাম, ঘন দুধ - ১/৪ কাপ, ক্রিম - ১/৪ কাপ, চিনি - ২ টেব...

পুডিং

খুব কম মানুষই আছে যারা পুডিং খেতে পছন্দ করেনা। ছোট-বড় সবারই প্রিয় খাবার এটি। উপকরণ: ডিম - ৩টি, দুধ - ১ গ্লাস, চিনি - ১ কাপের কম ও ভ্যানিলা এসেন্স। প্রণালী: একটি বাটিতে ডিম খুব ভালো করে ফেটে নিন। দুধ জালিয়ে ঘন করে ঠান্ডা করে নিন। অন্য একটি বাটিতে ঘন দুধ ও চিনি একসাথে গুলে নিন এবং এরপর দুধ ও ডিম এর মিশ্রন একসাথে ভালোভাবে ফেটে নিন এবং তাতে সামান্য পরিমান ভ্যানিলা এসেন্স দিন। ঢাকনাওয়ালা একটি বাটিতে সামান্য একটু চিনি দিন। চিনি লাল লাল হয়ে আসলে তাতে পুরো মিশ্রনটি ঢেলে দিয়ে বাটির মুখ ভালোভাবে লাগিয়ে পানিতে বসিয়ে ভাপে সিদ্ধ করুন। হয়ে গেলে ...

ডিমের বরফি

খুবই সুস্বাদু একটি খাবার ডিমের বরফি, বিশেষ করে তাদের কাছে যারা মিষ্টি খেতে একটু বেশিই ভালোবাসেন। খুব সহজেই তৈরী করতে পারেন প্রিয় ডিমের বরফি। উপকরণ: ডিম - ৪টি, ঘন দুধ - ১/৩ কাপ, চিনি - ১ কাপের একটু কম, ঘি - অর্ধেক কাপের একটু কম, দারুচিনি, এলাচ ও লবঙ্গ। প্রণালী: ডিমের সাদা অংশ ও কুসুম আলাদা করুন। দুটো ভিন্ন পাত্রে খুব ভালোকরে সাদা অংশ ও কুসুমের অংশ ফেটুন। এবার একটি পাত্রে ঢেলে দুটো একসাথে ফেটুন। গরম ফ্রাইংপ্যান এ একে একে ঘি, চিনি, দারুচিনি, এলাচ, ডিম, ঘন দুধ ও সামান্য গোলাপ পানি দিন। ভালো করে নাড়ুন। নাড়তে নাড়তে যখন ঘন হয়ে আসবে তখন জাল ক...

নারকেলের বরফি

মিষ্টি খেতে কম বেশি সবাই ভালোবাসে। আর তা যদি হয় ঘরে তৈরী কোনো মিষ্টান্ন তাহলে তো কথাই নেই।ঘরে তৈরী মিষ্টির মধ্যে নারকেলের বরফি অতি পরিচিত ও সুস্বাদু একটি খাবার। উপকরণ: কোড়ানো নারকেল, চিনি ও গরম মশলা। প্রণালী: প্রথমে কোড়ানো নারকেল ভালোকরে বেটে মিহি করে নিন। এবার একটি গরম পাত্রে নারকেল ও চিনি দিন। ভালো করে নাড়ুন। যখন নারকেল ও চিনির পানি একটু শুকিয়ে আসবে তখন চুলার আঁচ কমিয়ে দিয়ে নাড়তে থাকুন। মনে রাখবেন কোনভাবে যেন নারকেল পুড়ে না যায় বা পাত্রে লেগে না যায়। কিছুক্ষণ নাড়ার পর গরম মশলা দিন। নারকেল ও চিনির মিশ্রন যখন খুব ভালোভাবে মাখা ...

মনোহরা লাড্ডু

লাড্ডু সচরাচর খুব কম খাওয়া হয়ে থাকে। অনেকের কাছে লাড্ডু মুখরোচক ও লোভনীয় একটি খাবার। আপনি বাড়িতে বসে সুস্বাদু লাড্ডু তৈরি করে আপনার পরিবারে পরিবেশন করতে পারেন। উপকরণ: নারকেল কুড়া, চিনি, এলাচ, ক্ষেয়ো ক্ষীর, কনডেন্সড মিল্ক, কিসমিস, কাজু বাদাম ও ভাজা তিল। প্রস্তুত প্রণালী: প্রথমে চুলায় পাত্র দিয়ে নারকেল কুড়া, পরিমান মত চিনি, এলাচ গুড়া, ক্ষোয়া ক্ষীর, কনডেন্সড মিল্ক, কিসমিস দিয়ে আস্তে আস্তে নাড়তে থাকুন। আঠা আঠা হয়ে এলে কাজু বাদাম দিয়ে আরো কিছুক্ষণ নেড়ে পাত্রটি চুলা থেকে নামিয়ে ঠাণ্ডা করুন। এবার গোল গোল করে ভাজা তিল মাখিয়ে কি...

গাজর এর কুচি হালুয়া

উপকরণ: ৪ টা গাজর, ১ কিলোগ্রাম দুধ , ২/৪ টেবিল চামচ চিনি, ২/৩ টি এলাচ, ১ চা চামচ ঘি , কিসমিস, পেস্তা বাদাম। প্রণালী: গাজর মিহি কুচি করে নিন।১ টি পাত্রে দুধ দিয়ে তাতে এলাচ এবং চিনি দিয়ে জাল দিন। দুধ মাঝে মাঝে নাড়ুন যতক্ষণ না পর্যন্ত পরিমানে অর্ধেক হয়ে যায়। এর পর আরেকটি পাত্রে ঘি দিন ,গরম হয়ে এলে তাতে গাজর কুচি দিন। গাজর সেদ্ধ হলে তাতে জাল করা দুধ দিয়ে দিন।মাখা মাখা হলে নামিয়ে নিন। পাত্রে নিয়ে উপরে কিসমিস আর পেস্তা বাদাম কুচি দিয়ে পরিবেশন করুন ঝটপট গাজর এর কুচি হালুয়া।

বরফি সেমাই

পবিত্র মাহে রমজান মাস আসলে রসনা বিলাসের সেই গল্পের কথা মনে পড়ে। বাংগালী তো এমনেই ভোজন বিলাসী - সকালে এই রান্না তো রাতে ঐ রান্না আর ইফতারের আইটেম এর কথা তো বাদই দিলাম। রোজার দিন ইফতারে হরেক রকমের আইটেম করা হয় তার মধ্যে মিষ্টি জাতীয় আইটেম কমন। সেমাই, পায়েস, হালুয়া, সন্দেশ ইত্যাদি আইটেম ইফতারের জন্য করা হয়। আপনি ইচ্ছা করলে এই সব আইটেম এর মধ্যে বরফি সেমাই বানিয়ে ইফতারে পরিবেশন করতে পারেন। উপকরণঃ লাচ্ছা সেমাই, ঘি, কনডেন্সড মিল্ক, চিনি, কিচমিচ, পেসতা বাদাম ও কাজু বাদাম। প্রস্তুত প্রণালীঃ প্রথমে কড়াইয়ে সামান্য ঘি দিয়ে লাচ্ছা সেমাই ছোট কর...

আপেল কাস্টার্ড

আপেল ছোট বড় সবারই প্রিয় খাবার। আমরা বেশির ভাগ সময়ই আপেল ধুয়ে টুকরো করে খাই কিন্তু আপেল কাস্টার্ড বানিয়ে কখনও কি খেয়ে দেখেছেন? একই উপকরন দিয়ে যদি ভিন্ন ভিন্ন আইটেমের খাবার বানিয়ে খাওয়া যায় তাহলে খাবারের প্রতি কোন অরুচি আসে না। এই গরমের ঠান্ডা আপেল কাস্টার্ড আপনার ইফতার কে আরও লোভনীয় করে তুলবে। খুব সহজে এবং অল্প সময়ে তৈরি করুন আপেল কাস্টার্ড। উপকরনঃ আপেল, কাস্টার্ড পাউডার, দুধ, চিনি, এলাচ গুঁড়া, কনডেন্সড মিল্ক, পেস্তা বাদাম ও পুদিনা পাতা ইত্যাদি সব কিছুই দিতে হবে পরিমান মত। প্রনালীঃ প্রথমে আপেল ভাল করে ধুয়ে খোসা ছাড়িয়ে টুকরো...

মালপোয়া

মিষ্টি জাতীয় খাবার ছোট বড় সবার কাছেই প্রিয়। তবে এই সব খাবার থেকে ডায়াবেটিস রোগীরা অবশ্যই দূরে থাকবেন। কারন এই সব খাবার অনেক লোভনীয় হয়। মালপোয়া অনেক সুস্বাদু ও মজাদার একটা খাবার। খুব অল্প সময়ে মজাদার মালপোয়া তৈরি করে আপনার পরিবারে পরিবেশন করতে পারেন। উপকরনঃ পরিমান মত ময়দা, সুজি, দুধ, চিনি ও তেল । প্রনালীঃ প্রথমে পরিমান মত ময়দা নিন। তবে যতটুকু ময়দা নিবেন তার ৩ ভাগের ১ ভাগ নিন সুজি। ময়দা ও সুজির মধ্যে পরিমান মত দুধ দিয়ে ঘন করে গুলিয়ে নিন। এবার একটি পাত্র নিয়ে চুলার আচ দিয়ে চিনি আর পরিমান মত পানি দিয়ে চিনির শিরা তৈরি করুন। চ...

জিলাপি

গরম গরম জিলাপির কথা শুনলেই সবারই মুখে জল চলে আসে। জিলাপি বানানো অনেক সহজ, নিজের হাতে বানানো জিলাপির স্বাদটাই অন্যরকম। মচমচা জিলাপি খেতে চাইলে এখনি বসে পড়ুন জিলাপির সব উপকরন নিয়ে। উপকরনঃ ময়দা ২ কাপ, চিনি ২-৩ কাপ, চালের গুড়া ১/২ কাপ, বেকিং পাউডার ২ চা চামচ, দারুচিনি ও এলাচ ২-৩ করে, পানি পরিমান মত, সামান্য গোলাপ জল ও জাফরান এবং পরিমান মত তেল। প্রনালীঃ প্রথমে একটি পাত্রে ২কাপ ময়দা ও ১/২ কাপ চালের গুড়া নিন। এবার ময়দা ও চালের গুড়ার মধ্যে বেকিং পাউডার, গোলাপ জল, জাফরান ও পরিমান মত পানি দিয়ে একসাথে ভাল করে মিক্সড করুন। মিশানো উপকরন গুলো প্র...

ফলের ফালুদা

উপকরণঃ আপেল,কলা,পেঁপে,আম ইত্যাদি ফল টুকরো করে কাটা ২কাপ, ঘন দুধ ১কাপ, আইসক্রীম, মধু ২ টেবিল চামচ, পেস্তা কুচি, রুহ আফজা, ওয়েফার বিস্কুট সাজানোর জন্য। পদ্ধতিঃ প্রথমে দুধ ঘন করে ঠান্ডা করে নিতে হবে। ফলের টুকরো গুলোতে মধু মাখিয়ে নিতে হবে । এরপর ২টি গ্লাসে ফলগুলো দিয়ে তার উপর ঘন দুধ দিতে হবে। তারপর আইসক্রীমের স্কুপ দিয়ে তার উপর পেস্তা ছড়িয়ে দিতে হবে। ওয়েফার বিস্কুট দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করতে হবে।

খেজুরের হালুয়া

উপকরণঃ খেজুর ৫০০গ্রাম, চিনি আড়াই কাপ, কাজুবাটা আধা কাপ, নারকেল বাটা ১ কাপ, গুড়ো দুধ ১কাপ, ডিম ৪টা, ঘি/তেল আধা কাপ, পেস্তাকুচি,কিসমিস পরিমানমতো। পদ্ধতিঃ খেজুর ভালো করে ধুয়ে বিচি বের করে বেটে নিতে হবে। খেজুর বাটার সাথে গুড়ো দুধ, কাজু বাটা, নারকেল বাটা, ডিম, চিনি একসাথে ব্লেন্ড করে নিতে হবে। এবার কড়াইয়ে তেল/ঘি গরম করে খেজুরের মিশ্রণ দিয়ে নাড়তে হবে। এভাবে নাড়তে নাড়তে হালুয়া কড়াইয়ের গা ছেড়ে এলে পেস্তা কুচি, কিসমিস ছিটিয়ে কিছুক্ষণ নেড়ে কড়াই থেকে নামিয়ে ডিশে ঢেলে ঠান্ডা করতে হবে। বরফি করে কেটে পরিবেশন করা যায়।

চকলেট হালুয়া

উপকরণঃ সুজি আধা কাপ, বেসন আধা কাপ, চিনি ১ কাপ, ঘি/তেল আধা কাপ, কোকো পাউডার ২ টেবিল চামচ, চকলেট সিরাপ ১ টেবিল চামচ, ডিম ৩টা, পানি ২কাপ, সামান্য জয়ফল ও দারুচিনি গুড়া। পদ্ধতিঃ ডিম, কোকো পাউডার ,চকলেট , চিনি ও পানি একসাথে ব্লেন্ড করতে হবে। কড়াইয়ে তেল/ঘি ঢেলে গরম করে সুজি ঢালুন। সুজি ভাজা হয়ে গেলে বেসন দিয়ে নাড়তে থাকুন। এরপর ব্লেন্ড করা মিশ্রন ঢেলে দিন। পানি শুকিয়ে তেল উপরে ভেসে উঠলে জয়ফল ও দারুচিনি গুড়া মিশিয়ে চুলা থেকে নামান। ঠান্ডা হলে পরিবেশন করুন।

চিজ কেক

কেক ছোট বড় সবারই প্রিয় খাবার। বিশেষ করে ছোটরা কেক খাবার জন্য যেন বাহানা খোঁজে। ঘরে কেক বানিয়ে রেখে দিলে এটি বাচ্চাদের স্কুলের টিফিন থেকে শুরু করে অতিথি আপ্পায়নে আপনাকে সহযোগিতা করবে। বেক তৈরির উপকরণ : বিস্কুটের গুড়া - ২ কাপ, মাখন - ৫০ গ্রাম, পানি - ১ টেবিল চামচ, গুড়া চিনি - ১ টেবিল চামচ। ফিলিং তৈরির উপকরণ : ছানা - ২ কাপ, ময়দা - ১ টেবিল চামচ, ডিম - , গুড়া চিনি - ৩/৪ কাপ , কন্ডেসক মিল্ক - ১/৪ কাপ, লেমন রাইন্ড - ২ টেবিল চামচ, কুকিং চকলেট - ১/৪ কাপ। টপিং এর উপকরণ: কুকিং চকলেট - ২০০ গ্রাম, ঘন দুধ - ১/৪ কাপ, ক্রিম - ১/৪ কাপ, চিনি - ২ টেব...

খেজুরের গুড়ের পায়েস

নবর্বর্ষের দিনে অতিথিদের আপ্যায়নে পরিবেশন করতে পারেন দারুন স্বাদের এই খেজুরের গুড়ের পায়েস। উপকরণ: খেজুরের গুড়, পোলাও/আতপ চাল, দুধ, কিশমিস। প্রণালী: প্রথমে গুড় গরম পানিতে জালিয়ে ফুটিয়ে নিন। ফুটানোর পর একটি ছাকনী দিয়ে ভালোভাবে ছেকে নিন যাতে গুড়ের ময়লা আলাদা হয়ে যায়। চাল ধুয়ে কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখুন। চাল ভিজানোর ৫/৭ মিনিট পর শিল্ পাটায় আধা ভাঙ্গা করে নিন। অন্য একটি পাত্রে দুধ জালিয়ে ঘন করে নিন। দুধ ঘন হয়ে আসলে এতে চাল দিন এবং জালাতে থাকুন। চাল যখন ফুটে উঠবে তখন এতে ছেঁকে রাখা গুড় ঢেলে দিন। ভালোভাবে নাড়ুন। ঘন হয়ে আসলে প...

ডিমের বরফি

খুবই সুস্বাদু একটি খাবার ডিমের বরফি, বিশেষ করে তাদের কাছে যারা মিষ্টি খেতে একটু বেশিই ভালোবাসেন। খুব সহজেই তৈরী করতে পারেন প্রিয় ডিমের বরফি। উপকরণ: ডিম - ৪টি, ঘন দুধ - ১/৩ কাপ, চিনি - ১ কাপের একটু কম, ঘি - অর্ধেক কাপের একটু কম, দারুচিনি, এলাচ ও লবঙ্গ। প্রণালী: ডিমের সাদা অংশ ও কুসুম আলাদা করুন। দুটো ভিন্ন পাত্রে খুব ভালোকরে সাদা অংশ ও কুসুমের অংশ ফেটুন। এবার একটি পাত্রে ঢেলে দুটো একসাথে ফেটুন। গরম ফ্রাইংপ্যান এ একে একে ঘি, চিনি, দারুচিনি, এলাচ, ডিম, ঘন দুধ ও সামান্য গোলাপ পানি দিন। ভালো করে নাড়ুন। নাড়তে নাড়তে যখন ঘন হয়ে আসবে তখন জাল ক...