সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

কাতলা মাছের কালিয়া

কাতলা মাছ খাওয়া বাঙালি সংস্কৃতির ও ঐতিহ্যের উত্স। স্বাদে সবরকম মাছের মধ্যে রুই মাছের পরই এ মাছের স্থান। ভাজা কাতল, মাছের তরকারি, দোপেঁয়াজা, কোরসা, মুড়োঘন্ট, ...

টমেটো পাবদা বিলাসী

পাবদা মাছ অত্যন্ত সুস্বাদু এবং মাছের আভিজাত্যের মধ্যে অধিক জনপ্রিয় একটি মাছl বাঙালি মানেই তো মাছে ভাতে বাঙালি। ছুটির দিন দুপুরে গরম ভাতের সাথে মুসুর ডাল...

রুই মাছের ডিম ভাজি

রুই মাছ আমার অনেক প্রিয়। মাছের সাথে যখন দেখি পেটের ভেতর ডিমটাও আছে, আমার খুশি তখন দেখে কে। একবার বাড়িতে রান্না করেই দেখুন, আপনিও খুশি হবেন।উপকরণঃরুই মাছের ডি...

ফোঁড়ন দিয়ে রুই

আমরা মাছে ভাতে বাঙালি হলেও এমন অনেকেই আছেন যারা মাছ খেতে চান না। মাছে নাকি তাদের আঁশটে গন্ধ লাগে। বিশেষত তাদের জন্য এই রেসিপি। অন্যরাও রান্না করে খেতে প...

মুড়িঘন্ট

উপকরণঃ রুই বা কাতলা মাছের মুড়ো বা মাথা ও কানসা – ১ টি, মুগের ডাল – ১ কাপ, আদা বাটা – ১/৪ চা চামচ, জিরা বাটা – ১/৪ চা চামচ, মরিচ বাটা – ১ চা চামচ, তেজপাতা – ২ টা, গরম মসলা – ৩/৪ টুকরা, শুকনা মরিচ – ২/৩ টা, গোটা জিরা – সামান্য, লবণ, হলুদ, ঘি ও তেল – পরিমান মত। প্রনালীঃ প্রথমে মাছের মাথা কেটে ধুয়ে লবণ ও হলুদ দিয়ে মাখিয়ে গরম তেলে ভেঁজে নিন। তারপর মুগডাল ভেঁজে আধা সেদ্ধ করে নিন। এরপর কড়াইয়ে তেল দিয়ে তেজপাতা, জিরা, শুকনা মরিচ ফোঁড়ন দিয়ে একে একে আদা বাটা, জিরা বাটা, মরিচ বাটা, লবণ, হলুদ ও ভাজা মাছের মাথা দিয়ে নেড়ে চেড়ে সেদ্ধ ডাল ঢেলে পরিমান মত...

মূলা পালং পুঁটি

উপকরনঃ মূলা – ২০০ গ্রাম, পুঁটিমাছ – ৪০০ গ্রাম, পালংশাক – ১ আঁটি, হলুদ- সামান্য, পেঁয়াজ কুচি – আধা কাপ, মরিচের গুড়া – ১ চা চামচ, জিরার গুড়া – ১/৪ চা চামচ, আদা বাটা – আধা চা চামচ, রসুন ও জিরা বাটা – আধা চা চামচ, লবণ, ধনেপাতা কুচি, ধনের গুড়া ও তেল – পরিমান মত। প্রনালীঃ প্রথমে পুঁটিমাছ কেটে ধুয়ে লবণ ও হলুদ দিয়ে মাখিয়ে ভেঁজে নিন। অথবা আদা, রসুন, মরিচ, হলুদ, ও লবণ দিয়ে তেলের উপর কাঁচামাছ ঢেলে কষিয়ে নিলেও বেশ ভাল লাগে। তারপর কড়াইয়ে তেল দিয়ে পেঁয়াজ কুচি ভেঁজে সামান্য পানি দিয়ে উপকরনের বাটা মসলা ও লবণ দিয়ে ভাল করে কষিয়ে আবারও সামান্য পানি দি...

মলা মাছের মজাদার চচ্চরি

উপকরনঃ মলা মাছ – ৪০০ গ্রাম, আলু – ৪ টি, গোল বেগুন - ১ টি, পেঁয়াজ কুচি – ৩ টা, আদা কুচি – আধা চা চামচ, কাঁচা মরিচ কুচি – ৬/৭ টি, লেবুর রস – সামান্য, হলুদের গুড়া, লবণ, সরিষার তেল ও ধনে পাতা – পরিমান মত। প্রনালীঃ প্রথমে মলা মাছ গুলো কেটে বেছে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিন। তারপর আলু বেগুন চিকন লম্বা লম্বা করে কেটে ধুয়ে নিন। এরপর মাছ, আলু ও বেগুন আলাদা আলাদা করে হলুদ ও লবণের গুড়া দিয়ে মাখিয়ে গরম তেলে কড়া করে ভেজে নিন। তারপর এগুলো পরিবেশন পাত্রে তুলে রেখে পেঁয়াজ কুচি, আদা কুচি, কাঁচা মরিচ কুচি, সরিষার তেল, লেবুর রস ও ধনে পাতা কুচি দিয়ে মাখিয়ে অন্যস্...

মাছের ঝুরি ভাঁজা

উপকরনঃ যে কোন বড় মাছ – আধা কেজি, পেঁয়াজ কুচি – ৩ টা, শুকনা মরিচের গুড়া – ১ চা চামচ, কাঁচা মরিচ ফালি – ৫ টি, লবণ ও তেল – পরিমান মত। প্রনালীঃ প্রথমে মাছ কেটে ভাল করে ধুয়ে নিন। এরপর মাছের টুকরো গুলো গরম পানিতে সেদ্ধ করে কাটা বেছে অন্য পাত্রে তুলে রাখুন। তারপর কড়াইয়ে তেল দিয়ে পেঁয়াজ কুচি ছেড়ে বাদামী রং এ ভেজে মাছ গুলো ঢেলে দিন। এবার মাছের মধ্যে শুকনা মরিচের গুড়া, লবণ ও হলুদের গুড়া দিয়ে অনরবত নাড়তে থাকুন। নাড়তে নাড়তে ভাঁজা ভাঁজা হয়ে এলে কাঁচা মরিচ ফালি দিয়ে আবারও কিছুক্ষন নেড়ে চেড়ে চুলা থেকে নামিয়ে পছন্দনুযায়ী সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

মাছের ডিমে টমেটো ভাজি

উপকরনঃ কাঁচা টমেটো – ৪ টা, যে কোন মাছের ডিম – ২৫০ গ্রাম (তবে ইলিশ মাছের ডিম হলে বেশি ভাল হয়), কাঁচা মরিচ – ১৫ টি ( গোল করে কাটা ), হলুদের গুড়া – সামান্য, ধনিয়া পাতা – আধা কাপ, লেবু পাতা – ২ টি, লবণ ও তেল - পরিমান মত। প্রনালীঃ প্রথমে টমেটো ধুয়ে আলু ভাজির মত করে কেটে নিন। তারপর কড়াইয়ে পরিমান মত তেল দিয়ে মাছের ডিম গুলো হলুদ , লবণ, মরিচ ও লেবু পাতা দিয়ে ভেজে নিন। ভাজা ভাজা হলে টমেটো ঢেলে নাড়তে থাকুন। টমেটো সিদ্ধ হয়ে এলে ধনিয়া পাতা ছিটিয়ে চুলার আচ কমিয়ে দিন। ৫ মিনিট পর চুলা থেকে নামিয়ে ভাতের সাথে পরিবেশন করুন।

ইলিশ মাছের গা মাখানো চাসনা

উপকরনঃ ইলিশ মাছ – ৫০০ গ্রাম, পাঁকা টমেটো – ২০০ গ্রাম, কাঁচা মরিচ – ৫ টি, আদা বাটা – ১ চা চামচ, জিরা বাটা – আধা চা চামচ, হলুদের গুড়া – ১ চা চামচ, পেঁয়াজ বাটা – আধা কাপ, রসুন বাটা – আধা চা চামচ, লবণ ও সরিষার তেল – পরিমান মত। প্রনালীঃ প্রথমে ইলিশ মাছ ভাল করে কেটে ধুয়ে লবণ ও সামান্য হলুদের গুড়া দিয়ে মাখিয়ে রাখুন। তারপর টমেটো ধুয়ে কুচি কুচি করে কেটে নিন। এবার কড়াইয়ে পরিমান মত তেল দিয়ে মাছ গুলো কষিয়ে অন্য পাত্রে তুলে রাখুন। এরপর ঐ কড়াইয়ে উপরের সব মসলা দিয়ে কষিয়ে টমেটো ঢেলে আচ দিন। টমেটো সিদ্ধ হয়ে গেলে চামচ দিয়ে ভাল করে পেস্ট করে পানি ঢে...

কাঁচা টমেটো চাঁদা মাছের চচ্চরি

উপকরনঃ কাঁচা টমেটো – ৫০০ গ্রাম, চাঁদা মাছ – ২০০ গ্রাম, কাঁচা মরিচ - ১২ টা, পেঁয়াজ কুচি – ২ টা, রসুন বাটা – আধা চা চামচ, হলুদের গুড়া – আধা চা চামচ, জিরা বাটা – আধা চা চামচ, ধনিয়া গুড়া – আধা চা চামচ, আদা বাটা – আধা চা চামচ, ধনিয়া পাতা – পরিমান মত, লবণ ও সয়াবিনের তেল – পরিমান মত। প্রনালীঃ প্রথমে টমেটো ভাল করে ধুয়ে চিকন চিকন ফালি করে কেটে নিন। তারপর চাঁদা মাছের কাটা কেটে পরিষ্কার করে ধুয়ে লবণ ও হলুদ দিয়ে মাখিয়ে রাখুন। এবার কড়াইয়ে তেলের পরিমান বেশি দিয়ে মরিচ ও পেঁয়াজ কুচি হালকা বাদামী রং এ ভেজে নিন। এরপর উপরের সব মসলা দিয়ে কিছুক্ষন কষিয়ে...

পাকা টমেটো দিয়ে কৈ মাছের ঝল

উপকরনঃ পাকা টমেটো – ৩৫০ গ্রাম, কৈ মাছ –আধা কেজি, কাঁচা মরিচ – ৫ টি, মরিচের গুড়া – ১ চা চামচ, পেয়াজ বাটা – ১ চা চামচ, রসুন বাটা – আধা চা চামচ, হলুদের গুড়া – আধা চা চামচ, আদা বাটা – ১ চা চামচ, লবণ - পরিমান মত, জিরা বাটা – আধা চা চামচ, ধনে পাতা – সামান্য ও তেল – পরিমান মত। প্রনালীঃ প্রথমে মাছ ভাল করে কেটে ধুয়ে নিন। এরপর টমেটো ধুয়ে চার ফালি করে কেটে রাখুন। তারপর কড়াইয়ে সব বাটা মসলা দিয়ে মাছ কষিয়ে নিন। কষানো হয়ে গেলে মসলা থেকে মাছ তুলে রাখুন অন্য পাত্রে। এবার ঐ পাত্রে টমেটো দিয়ে কিছুক্ষন কষিয়ে নিন। কষানো হলে সামান্য পানি দিয়ে ঢাকনায় ঢেকে ...

ওলকপি দিয়ে তেলাপিয়া মাছ

গ্রাম ছাড়া শহরের বাজার গুলোতে খুব কমই ওলকপি দেখতে পাওয়া যায়। অনেকে ধারনা ওলকপি খেলেই গলা চুলকায় কিন্তু ভাল শুকনা ওলকপিতে কখনো গলা চুলকায় না। তাছাড়ও ওলকপি রান্নার কিছু পদ্ধতি আছে। ওলকপি তরকারি রান্না করার আগে ২ দিন আগে থেকে অবশ্যই রোদে বা চুলার পাশে রেখে শুকিয়ে নিতে হবে। তারপর রান্নার সময় গরম পানিতে ভাপ দিয়ে নিতে হয় তাহলে গলা চুলাকানোর আর ভয় থাকে না। ওলকপির যে কোন মাছ দিয়ে রান্না করে খাওয়া যায়। তেলাপিয়া মাছের ওল তরকারি অনেক মজাদার একটা খাবার। উপকরনঃ তেলাপিয়া মাছ ১ কেজি, ওলকপি ১ কেজি, লাল মরিচের গুড়া দেড় চা চামচ, হলুদের গুড়া ...

মুরগীর মাংস কষানো রান্না

রিমঝিম বৃষ্টি খিচুরী আর মুরগীর কষানো মাংস আহ! মনে হতেই জিহ্ববায় পানি চলে আসছে। এইরকম দিনে পরিবারে এই লোভনীয় খাবারটি পরিবেশন করতে পারেন। উপকরনঃ ১ কেজি মুরগীর মাংস, মরিচের গুড়া ২ চা চামচ, জিরা বাটা আধা চা চামচ, আদা বাটা ১ চা চামচ, হলুদের গুড়া ১ চা চামচ, গরম মসলা পরিমান মত, ভাজা গোল মরিচের গুড়া, রসুন বাটা ১ চা চামচ, পেয়াজ বাটা আধা কাপ, কাঁচা মরিচ ৩-৪ টা, লবণ ও সয়াবিনের তেল। প্রনালীঃ মুরগীর মাংস টুকরা করে কেটে ভাল করে ধুয়ে নিন। একটি পাত্রে পরিমান মত তেল দিয়ে চুলায় আঁচ দিতে থাকুন। তারপর উপরের সব উপকরন ও সামান্য পানি দিয়ে প্রায় ৫ মিনিট...

পাঙ্গাস মাছের পেঁপের দম

উপকরনঃ পেঁপে আধা কেজি, বড় পাঙ্গাস মাছ আধা কেজি, আদা বাটা ১ চা চামচ, রসুন বাটা আধা চা চামচ, পেয়াজ বাটা আধা কাপ, জিরা বাটা আধা চা চামচ, মরিচের গুড়া ২ চা চামচ, হলুদের গুড়া ১ আধা চা চামচ, ভাজা জিরার গুড়া ১ চা চামচ, লবন ও সয়াবিনের তেল পরিমান মত। প্রনালীঃ প্রথমে পেঁপে টুকরা করে কেটে গরম পানিতে ভাপ দিয়ে নিন। পাঙ্গাস মাছ ভাল করে ধুয়ে লবন ও সামান্য হলুদের গুড়া দিয়ে ১০-১৫ মিনিট মাখিয়ে রাখুন। তারপর একটি কড়াইয়ে সামান্য তেল দিয়ে আচ দিতে থাকুন। তেল গরম হলে পাঙ্গাস মাছ ছেড়ে দিয়ে খুব ভাল করে ভেজে অন্য পাত্রে তুলে রাখুন। ঐ তেলে ভাজা জিরার গুড়...

কাঁচ কলা দিয়ে রুই মাছের মাথা

কাঁচ কলা অনেক উপকারী ও সুস্বাদু একটা খাবার। কাঁচ কলার তরকারী অনেকে পছন্দ করে আবার অনেক অপছন্দ করে থেকে। আমরা বাজার থেকে বড় রুই মাছ কিনলে মাথা দিয়ে বেশির ভাগ মুড়ি ঘন্ট বা যে কোন তরকারির মধ্যে দিয়ে চচ্চরি করে খায়। কিন্তু কাঁচ কলার অন্য রকম স্বাদের তরকারি দিয়ে কখনো রান্না করে খেয়ে দেখেছেন? যদি না খেয়ে থাকেন তাহলে এখনই এই আইটেমটি ঝটপট তৈরি করুন পরিবারের সবার জন্য। উপকরনঃ কাঁচ কলা ৪ টি, বড় রুই মাছে মাথা ১ টি, আদা বাটা ও জিরা বাটা আধা চা চামচ, পেয়াজ বাটা আধা কাপ, রসুন বাটা ১ আধা চামচ, পেয়াজ কুচি ২ টি, মরিচের গুড়া দেড় চা চামচ, হলুদের গুড়...

দস্তাল কচুর ডগা ও পুটি মাছের চচ্চরি

এই কচু যে ভাবে খুশি যে কোন মাছ দিয়ে রান্না করে খেতে পারেন। কারন এই কচুতে গলা চুলকায় না। দস্তাল কচুর ডগা ও পুটি মাছের তরকারীর স্বাদ সম্পূর্ন আলাদা। নতুন স্বাদে নতুন কিছু খেতে চাইলে দস্তাল কচু সংগ্রহ করে এখনি ঝটপট রান্না করে পরিবেশন করুন। উপকরনঃ দস্তাল কচুর ডগা ৫-৬ টি, পুটি মাছ ২৫০ গ্রাম, কাঁচা মরিচ ফালি ১০-১২ টি, পেয়াজ কুচি আধা কাপ, রসুন বাটা ১ চা চাপচ, আদা বাটা আধা চা চামচ, জিরা বাটা আধা চা চামচ, হলুদের গুড়া ১ চা চামচ, ভাজা জিরার গুড়া ১ চা চামচ, লবণ ও সয়াবিনের তেল পরিমান মত। প্রনালীঃ প্রথমে দস্তালের ডগা ছুলে টুকরা টুকরা করে কেটে ধুয়ে ...

মান কচু দিয়ে ইলিশ মাছ রান্না

মান কচুর সাথে ইলিশ মাছের তরকারি অনেক সুস্বাদু খাবার। এই সব সবজি হাতের নাগালে খুব কমই পাওয়া যায়। তবে যখনি পাবেন ঠিক তখনই এই মজাদার খাবারটি খেয়ে দেখবেন। উপকরনঃ বড় মান কচু্র অর্ধেক, ইলিশ মাছ আধা কেজি, আদা বাটা ১ আধা চামচ, জিরা বাটা আধা চা চামচ, পেয়াজ বাটা ১ কাপ, লাল মরিচের গুড়া ২ চা চামচ, হলুদের গুড়া ১ চা চামচ, লবন ও পরিমান মত সয়াবিনের তেল। প্রনালীঃ প্রথমে মান কচু বড় টুকরা করে কেটে ভাপ দিয়ে নিন। তারপর মাছে টুকরা গুলো ধুয়ে সামান্য লবন, সয়াবিনে তেল ও হলুদের গুড়া দিয়ে কষিয়ে নিন। এবার পাত্রে পরিমান মত তেল ও উপরের উপকরন দিয়ে মসলা...

কচুর লতী ও চিংড়ি মাছ চচ্চরি

কচুর লতী গ্রামের চেয়ে শহরের মানুষের কাছে বেশি প্রিয় খাবার। কচুর লতী অনেক আইটেমে রান্না করে খাওয়া যায়। চিংড়ি মাছের সাথে কচুর লতী চচ্চরি অনেক সুস্বাদু ও লোভনীয় একটি খাবার। উপকরনঃ কচুর লতী আধা কেজি, চিংড়ি মাছ ২৫০ গ্রাম, আদা বাটা আধা চা চামচ, জিরা বাটা আধা চা চামচ, কাঁচা মরিচ ফালি ১০-১৫ টি, পেয়াজ বাটা ১ চা চামচ, রসুন বাটা ১ চা চামচ, ভাজা জিরার গুড়া, হলুদের গুড়া ১ চা চামচ, লবণ ও পরিমান মত সয়াবিনের তেল। প্রনালীঃ প্রথমে কচুর লতী বেছে ছোট ছোট টুকরা করে ধুয়ে নিন। চিংড়ি মাছ পরিষ্কার করে কেটে বেছে ধুয়ে অন্য পাত্রে রাখুন। এবার কড়াইয়ের...

মাছের মাথা দিয়ে কচুর মুখী ঘন্ট

কচুর মুখী খুব সহজে অল্প সময়ে ঘন্ট করা যায়। কচুর মুখী ঘন্ট যে কোন বড় মাছে মাথা ও লেজ দিয়ে রান্না করা যায়। আবার মাছের মাথা ছাড়াও রান্না করা যায়। কচুর মুখী ঘন্ট সম্পূর্ন অন্য রকম স্বাদের মজাদার একটা খাবার। উপকরনঃ কচুর মুখী আধা কেজি, বড় মাছে মাথা ১টি, পেয়াজ কুচি আধা কাপ, রসুন কুচি ১ টি, কাঁচা মরিচের ফালি ১০ টি, তেজপাতা ২ টি, ভাজা জিরার গুড়া ২ চা চামচ, লবন ও সয়াবিনের তেল পরিমান মত। প্রনালীঃ পাত্রে পরিমান মত পানি ও কচুর মুখী দিয়ে সিদ্ধ করে নিন। সিদ্ধ হয়ে গেলে চুলা থেকে নামিয়ে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। তারপর খোসা ছাড়িয়ে কচু ভর্তা মত...

চিংড়ি শুটকি দিয়ে বেগুন ও আলু চচ্চড়ি

উপকরণ: চিংড়ি শুটকি ৭০ গ্রাম, বেগুন ৩০০ গ্রাম, বড় আলু ২ টা, পিঁয়াজ কুচি ৫টি, রসুন কুচি ২ টি, হলুদ গুড়া ১/৩ চা চামচ, কাঁচা মরিচ ৮ টি, লবণ ও তেল পরিমাণ মত। পদ্ধতি: প্রথমেই চিংড়ি শুটকি ফুটন্ত গরম পানিতে ভিজিয়ে ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিন। এরপর লবণ, তেল, মরিচ, হলুদ, পিঁয়াজ কুচি, রসুন কুচি, কাঁচা মরিচ ও চিংড়ি শুটকি একসাথে ভালো করে কষিয়ে নিন। এবার তাতে কাটা আলু ও বেগুন দিন। অল্প পানি দিয়ে ঢেকে রান্না করুন। পানি কমে চচ্চড়ি হয়ে এলে নামিয়ে নিন।

পাঙ্গাস মাছের ঝোল

উপকরণ: পাঙ্গাস মাছ ১০ টুকরা, পিঁয়াজ বাটা ১ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ১/২ চা চামচ, আদা বাটা – ১/৩ চা চামচ, জিরা বাটা ১/৩ চা চামচ, হলুদ গুড়া ১/৩ চা চামচ, মরিচ গুড়া ২/৩ চা চামচ লবণ ও তেল পরিমাণ মত। পদ্ধতি: প্রথমে কড়াইয়ে তেল গরম করে তাতে সব মশলা দিয়ে ভালো ভাবে কষিয়ে নিন। এবার কষানো মসলায় আগে থেকে পরিষ্কার করে রাখা মাছের টুকরোগুলো দিয়ে দিন। ভালোভাবে মাছ মসলায় কষিয়ে পানি দিয়ে ঢেকে রান্না করুন। কিছুক্ষণ পর ঝোল দেখে নামিয়ে নিন।

টাকি মাছের আলুর দম

উপকরনঃ বড় টাকি মাছ ৩ টি, আলু সিদ্ধ ৫-৬ টি, আদা বাটা ১ চা চামচ, রসুন বাটা ১ চা চামচ, পেয়াজ বাটা ২ চা চামচ, জিরা বাটা আধা চা চামচ, হলুদের গুড়া ১ চা চামচ, ধনিয়া গুড়া আধা চা চামচ, ভাজা জিরার গুড়া ১ চা চামচ, দারচিনি ২-৩ তুকরা, তেজপাতা ২ টা, লাল মরিচের গুড়া আধা চা চামচ, কাচা মরিচ ফালি ৫ টি, লবণ ও সয়াবিনের তেল। প্রনালীঃ প্রথমে বড় বড় টাকি মাছের চামড়া ছুলে টুকরা করে কেটে ভাল করে ধুয়ে নিন। তারপর লবণ, হলুদের গুড়া ও সামান্যে তেল দিয়ে কষিয়ে অন্য পাত্রে তুলে রাখুন। এবার কড়াইয়ে পরিমান মত তেল দিয়ে সিদ্ধ করা আলুর মাঝখান থেকে টুকরা করে বাদা...

চিংড়ি মাছ ও বাঁধা কপি ভাজি

উপকরণ: বড় চিংড়ি - ১০ টি, বাঁধা কপি কুচি - ৪০০ গ্রাম, পিঁয়াজ কুচি - ৩ টা, কাঁচা মরিচ – ৫ টা, হলুদ সামান্য, লবণ ও তেল পরিমাণ মত। পদ্ধতি: আগে থেকে পরিষ্কার করে রাখা চিংড়ি সামান্য লবণ ও হলুদ দিয়ে প্রথমেই তেলে ভেজে নিন। এবার ভাজা চিংড়িতে বাঁধাকপি কুচি, পিঁয়াজ কুচি, কাঁচা মরিচ ও পরিমাণ মত লবণ দিয়ে নেড়ে-চেড়ে ঢেকে দিন। একটু পরপর নেড়ে দিন। ভাজি ভাজি হয়ে গেলে নামিয়ে নিন।

চিংড়ি মাছ ও মুলা শাক ভাজি

উপকরণ: ছোট চিংড়ি -২৫০ গ্রাম, মুলা শাক – ১ কেজি, পিঁয়াজ কুচি – ৫ টা, রসুন কুচি-২ টা, কাঁচা মরিচ -১০ টা, লবণ ও তেল পরিমাণ মত। পদ্ধতি: প্রথমেই কড়াইয়ে তেল গরম করতে দিন। তেল গরম হয়ে এলে তাতে সামান্য লবণ দিয়ে চিংড়ি ভেজে নিন। ভাজা চিংড়িতে পিঁয়াজ, রসুন, কাঁচা মরিচ দিয়ে আরও কিছুক্ষণ ভেজে নিন। এবার তাতে আগে থেকে ভাপ দিয়া রাখা শাক ও পরিমাণ মত লবণ দিন। ভাজা হয়ে গেলে নামিয়ে নিন।

পুঁইশাক দিয়ে নলা মাছ

উপকরনঃ মোটা মোটা নরম ডাটাসহ পুঁই শাক আধা কেজি, নলা মাছ আধা কেজি, আদা বাটা ১ চা চামচ, রসুন বাটা ১ চা চামচ, পেয়াজ বাটা ১ কাপ, পেয়াজ কুচি ২ টি, জিরা বাটা ১ চা চামচ, কাঁচা মরিচ ফালি ৫-৬ টি, লাল মরিচের গুড়া ১ চা চামচ, হলুদের গুড়া ১ চা চামচ, ধনিয়া পাতা কুচি, লবণ ও সয়াবিনের তেল। প্রনালীঃ প্রথমে মোটা মোটা নরম ডাটাসহ পুঁইশাক টুকরা করে কেটে ভাল করে ধুয়ে রাখুন। এরপর মাছ ভাল করে কেটে ধুয়ে উপরের বাটা মসলা থেকে সামান্য পরিমান মসলা ও তেল দিয়ে মাছ কষিয়ে অন্য পাত্রে তুলে রাখুন। কড়াইয়ে পরিমান মত তেল দিয়ে পেয়াজ কুচি বাদামী রঙ এ ভাজুন। ভাজা পিয়াজ...

লাউয়ের সাথে টাকি মাছের ঝোল

লাউ দিয়ে টাকি মাছ অনেক মজাদার একটা খাবার। গ্রাম অঞ্চলের মানুষের কাছে এই খাবারটি অনেক প্রিয়। উপকরনঃ লাউ, টাকি মাছ, আদা বাটা, রসুন বাটা, পেয়াজ কুচি, পেয়াজ বাটা, জিরা বাটা, ভাজা জিরার গুড়া, লবণ, মরিচের গুড়া, কাঁচা মরিচ হালকা ফালি করা, হলুদের গুড়া ও সয়াবিনের তেল। প্রনালীঃ টাকি মাছ ভাল কেটে ভাল করে ধুয়ে লবণ, হলুদ ও তেল দিয়ে হালকা কষিয়ে অন্য পাত্রে তুলে রাখুন। লাউ লম্বা ও ছোট ছোট টুকরা করে কেটে ধুয়ে রাখুন। এবার হাঁড়িতে পরিমান মত তেল দিয়ে উপরের মসলাগুলো কষিয়ে নিন। কষানো মসলা থেকে তেল উপরের দিকে উঠে আসলে টুকরা করা লাউ দিয়ে নেড়ে ঢে...

লাউ পাতা দিয়ে চ্যাপা শুটকি ভর্তা

শুটকি মাছে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন থাকে যা তাজা মাছের চেয়ে দ্বিগুন। শুটকি মাছের মধ্যে চ্যাপা শুটকি অনেক টেস্টি ও মজাদার হয়। অনেকের কাছে শুটকি মাছ এতটাই প্রিয় যে শুটকি মাছের ভর্তা ও গরম ভাত হলে তার আর কিছুই লাগে না। লাউ পাতা ও চ্যাপা শুটকি যদি একসাথে ভর্তা করা হয় তাহলে স্বাদটা আরও বেশি বেড়ে যায়। উপকরনঃ লাউ পাতা ৪ টা, ৫০ গ্রাম চ্যাপা শুটকি, ১০ টা কাঁচা মরিচ, দেশি পেয়াজ ২টি, দেশি বড় রসুন ২ টি, সামান্য লবন, ও সরিষার তেল। প্রনালীঃ প্রথমে গরম পানি দিয়ে ভাল করে শুটকি মাছ ও লাউ পাতা ঠান্ডা পানি দিয়ে ভাল করে ধুয়ে নিন। লাউ পাতাগুলো কুচি ক...

কচুর মুখী দিয়ে ইলিশ মাছ রান্না

ইলিশ মাছ মাছের মধ্যে সেরা মাছ। ইলিশ মাছের স্বাদ ও ঘ্রাণ সব মাছের চেয়ে আলাদা। এই মাছ দিয়ে যে কোন সবজি রান্না করে খাওয়া যায়। ইলিশ মাছ দিয়ে কচুর মুখী অনেক মজাদার একটা খাবার। বাজার থেকে ইলিশ কিনে বাসায় এসে নিশ্চই চিন্তা করছেন যে কি দিয়ে রান্না করবেন। সমস্ত চিন্তা ঝেরে ফেলে এখনি হাতের কাছে থাকা কচুর মুখী দিয়ে শুরু করুন ইলিশ মাছ রান্না। উপকরনঃ ১ কেজি ইলিশ মাছ একটি, আধা কেজি কচুর মুখী, আদা বাটা ১চা- চামচ, পেয়াজ বাটা ছোট কাপের ১ কাপ, জিরা বাটা ১চা- চামচ, ভাজা জিরার গুড়া ১ চা- চামচ, দেশি পেয়াজ কুচি ২টি, কাঁচা মরিচের ৩-৪ টি, হলুদের গুড়া ১ চা...

গরুর মাংস দিয়ে কাঁচা কাঁঠাল

বৃষ্টির দিনে গরুর মাংস ভুনা আর খিচুরী সবার কাছেই অনেক প্রিয় খাবার। গরুর মাংস কাবাব থেকে শুরু করে অনেক ভাবে রান্না করে সব সময় খাওয়া যায়। কিন্তু গরুর মাংস আর কাঁচা কাঁঠাল রান্না শুধু কাঁঠালের মৌসুমে খাওয়া হয়। তাই যখনই হাতের কাছে কাঁচা কাঁঠাল পাবেন ঠিক তখনই এই রেসিপিটি হাতে নিবেন পরিবারের সবার জন্য। উপকরনঃ ছোট কাঁচা কাঁঠাল অর্ধেক বিচিসহ, ১ কেজি গরুর মাংস, আদা বাটা ১ চা-চামচ, পেয়াজ বাটা আধা কাপ, পেয়াজ কুচি ২টি, রসুনে কোয়া ৫ টি, রসুন বাটা ২ চা-চামচ, জিরা বাটা ১ চা-চামচ, গরুর মাংসের মসলা পরিমান মত, গোটা গোটা দারচিনি, লবঙ্গ, এলাচ ৩-৪ টা করে, ত...

রুই মাছের সাথে ঝিঙ্গা

বড় তাজা রুই মাছ খেতে অনেক সুস্বাদু। রুই মাছ যে কোন সবজি দিয়ে রান্না করে খাওয়া যায়। সুস্বাদু মাছ যদি সুস্বাদু সবজি দিয়ে রান্না করা যায় তাহলে স্বাদ টা কিন্তু আরও দ্বিগুন বেড়ে যায়। উপকরনঃ পরিমান মত রুই মাছ, কচি ঝিঙ্গা, আদা বাটা, জিরা বাটা, রসুন বাটা, হলুদের গুড়া, মরিচের গুড়া, পেয়াজ বাটা, ভাজা জিরার গুড়া, লবণ ও পরিমান মত সয়াবিন তেল। প্রনালীঃ প্রথমে রুই মাছ ভাল করে ধুয়ে গরম তেলে ভেজে মচমচা করে ভেজে নিন। এবার অন্য আরেকটি প্যানে পরিমান মত তেল দিয়ে রসুন বাটা, আদা বাটা, জিরা বাটা, লবণ ও পেয়াজ বাটা দিয়ে ১ মিনিটের মত মসলা কষিয়ে নিন। ...

কৈ মাছের দোপেঁয়াজি

কৈ মাছ ভাজি, কৈ মাছের তরকারি সবার কাছেই সুস্বাদু একটা খাবার। বেগুন, আলু, শালগম সবজি দিয়েও কৈ মাছ রান্না খেতে খুব ভাল লাগে। উপকরনঃ কৈ মাছ ৫-৬ টি, আদা বাটা ১চা চামচ, রসুন বাটা ১ চা চামচ, পেয়াজ বাটা ১ কাপ, ২-৩ টি পেয়াজ কুচি , হলুদের গুড়া ১চা চামচ , মরিচের গুড়া ১-১/২ চা চমচ, সায়াবিন তেল ও লবন পরিমান মত, কাচা মরিচ ফালি ৫-৬ টি ও পরিমান মত ধনিয়া পাতা কুচি। প্রনালীঃ প্রথমে কৈ মাছ গুলো ভাল করে কেটে ধুয়ে নিন। তারপর ৫-১০ মিনিট লবন, হলুদ ও সামান্য বাটা মসলা দিয়ে মাখিয়ে রাখুন। এবার চুলায় একটি পাত্রে পরিমান মত তেল দিয়ে আঁচ দিতে থাকুন। তেল গ...

কবুতরের মাংস

কচি কবুতরের মাংস খেতে অনেক মজাদার ও সুস্বাদু। কবুতরের মাংস শরীরের জন্য অনেক পুষ্টিকর। উপকরনঃ কবুতরের মাংস, আলু, গরম মসলা, আদা বাটা, জিরা বাটা, পেয়াজ কুচি, রসুন বাটা, গোটা কোয়া ছড়ানো রসুন, সাদা গোল মরিচের গুড়া, মরিচের গুড়া, কাচা মরিচ, হলুদের গুড়া, লবন, ভাজা জিরা গুড়া, ধনিয়া গুড়া ও তেল। প্রনালীঃ প্রথমে কবুতরের মাংস ও আলু ছোট ছোট টুকরা করে কেটে ভাল করে ধুয়ে নিন। তারপর কড়াইয়ে পরিমান মত সয়াবিনের তেল দিয়ে আলু টুকরা গুলো হালকা বাদামী করে ভেজে নিন। ভাজা আলু গুলো অন্য পাত্রে উঠিয়ে ঐ তেলে মধ্যে পেয়াজ কুচি, রসুনে ৫-৬ টা কোয়া ও গরম মসলা...

পুঁই ডিম ভাজি

পুঁইশাকের ভাজি থেকে শুরু করে নিরামিষ ও মাছ রানা সব কিছুই খেতে অনেক মজা লাগে। পুঁইশাক দিয়ে ডিম ভাজি অনেক টেস্টি একটি খাবার। প্রতিদিন নরমাল ডিম ভাজি না করে মাঝে মাঝে আপনার রেসিপি যদি একটু ভিন্ন ভাবে পরিবারে পরিবেশন করেন তাহলে আপনার আইটেম টি খেতেও ভাল লাগবে আবার রুচিরও পরিবর্তন আসবে। উপকরনঃ পুঁই শাক, মুরগীর ডিম ১/২ টি, লবন, কাঁচা মরিচ কুচি, পেয়াজ কুচি, হলুদের গুড়া, ধনিয়া পাতা ও সয়াবিনের তেল। প্রনালীঃ পুঁইশাকে পাতা গুলো ভাল করে ধুয়ে কুচি কুচি করে কাটুন। তারপর কড়াইতে পরিমান মত তেল দিয়ে পেয়াজ কুচি ছেড়ে দিয়ে বাদামী রঙ এ ভেজে সামান্য...

মাছের চপ

মাছ আমাদের সবার পছন্দ। কিন্তু মাছের লেজ খেতে মোটামুটি আমরা সবাই অপছন্দ করি। কিন্তু লেজ ছাড়া তো মাছ কেনা যাবেনা। কেউ না খেলে রাধুনিকেই সেটা খেতে হয়। সেই মাছের লেজ দিয়ে আমরা মজাদার চপ বানাতে পারি খুবই সহজে। যা যা লাগবে: দুই তিনটি রুই বা ইলিশ মাছের লেজ, ৩ টি মাঝারি আলু, ১ টি বড় পিয়াজ, ৪ টি কাঁচামরিচ, ১ টি ডিম, আধা চা চামচ হলুদ গুড়া, আধা চা মরিচ গুড়া, আধা চা চামচ জিরা গুড়া, আধা চা চামচ গোলমরিচ গুড়া, আধা চা চামচ গরম মশলা গুড়া, লবন, তেল। - মাছের লেজ হলুদ, মরিচ, লবন মেখে ১০ মিনিট রেখে দিন - আলু সিদ্ধ করে নিন - সামান্য তেল দিয়ে লেজ গুলো ...

বাইম মাছ ভুনা

বাইম মাছকে অনেকে আবার গুইচি বা গুচা মাছ বলে থাকে। তাজা তাজা বাইম মাছ ভুনা খেতে অনেক সুস্বাদু হয়।বাইম মাছ ভুনা করার পর চারদিকে মাংস রান্নার মত ঘ্রান ম ম করে। উপকরনঃ বাইম মাছ, মরিচের গুড়া, পেয়াজ কুচি, পেয়াজ বাটা, রসুন বাটা, আদা বাটা, গরম মসলা, দারুচিনি, এলাচ, লবন, হলুদ, জিরা বাটা, কাচা মরিচ, ধনিয়া পাতা কুচি ও সয়াবিনের তেল। প্রনালীঃ একটি পাত্রে পরিমান মত সয়াবিনের তেল দিয়ে তার মধ্যে পেয়াজ কুচি, গরম মসলা, দারুচিনি ও এলাচ ছেড়ে দিন। পেয়াজ হালকা বাদামী রঙ এ হয়ে এলে রসুন বাটা, পেয়াজ বাটা ও জিরা বাটা দিয়ে ১ মিনিটের মত কষিয়ে সামান্যে পা...

ইলিশ মাছের ডিম দিয়ে করল্লা চচ্চরি

ইলিশ মাছ যে কোন সবজির সাথে রান্না করলে তরকারীর স্বাদ বাড়ে ও খেতে মজা লাগে। করল্লা শরীরের জন্য অনেক উপকারী একটি সবজি। করল্লা অনেক ভাবে রান্না করে খাওয়া যায়। করল্লা ও ইলিশ মাছে ডিম অনেক সুস্বাদু ও পুষ্টিকর একটা খাবার। উপকরনঃ বড় করল্লা, ইলিশ মাছের ডিম, পেয়াজ ২টা, হলুদের গুড়া, ধনে গুড়া, লবন, কাঁচা মরিচ ফালি ও সয়াবিন তেল। প্রনালীঃ প্রথমে ইলিশ মাছের ডিম গুলো ভেজে অন্য একটি পাত্রে উঠিয়ে রাখুন। তারপর চুলায় পাত্র বসিয়ে পরিমানমত তেল দিয়ে পেয়াজ কুচি দিয়ে দিন। পেয়াজ হালকা বাদামী রঙ ভাজা হলে সামান্য হলুদের গুড়া, ধনে গুড়া দিয়ে গোল গো...

চিংড়ী মাছের কোপ্তা

উপকরণ: চিংড়ী মাছ, আদা বাটা, পেয়াজ বাটা, মরিচ বাটা , গরম মসলা গুড়া, হলুদ, নুন ও তেল। প্রস্তুত প্রণালী: প্রথমে চিংড়ী মাছের মাথা বাদ দিয়ে খোসা ছাড়িয়ে কিমার মত করে বা বেটেও নিতে পারেন। এবার কিমার মধ্যে আদা বাটা, পেয়াজ বাটা, মরিচ বাটা, পরিমানমত নুন, গরম মসলার গুড়া সব কিছুই পরিমান মত দিয়ে মাখিয়ে রাখুন প্রায় ২ মিনিট। তারপর বড়ার মত করে ডুবো তেলে ভাজুন। গরম গরম সালাদের সাথে বিকেলের নাস্তা হিসেবে পরিবেশন করুন। মুখরোচক চিংড়ী মাছের কোপ্তা খেতে অনেক মজা।

নারকেল দুধে ইলিশ মাছ ভোনা

ইলিশ মাছ প্রত্যেকটা বাঙ্গালীর প্রিয় মাছ। বৈশাখ মাস থেকে শুরু হয় ইলিশ ও পান্তা খাওয়ার ধুম।পান্তা ইলিশ বিভিন্ন ভাবে রান্না করে খাওয়া যায়। তার মধ্যে নারকেল দুধে ইলিশ মাছ ভোনা অনেক জনপ্রিয়। উপকরণ: ইলিশ মাছ, নারকেলের দুধ, তেল, পেয়াজ কুচি, হলুদ, ধনেগুড়া, জিরাগুড়া, লবণ, কাঁচামরিচ, শুকনা মরিচের গুড়া। প্রনালী: প্রথমে মাছ পরিষ্কার করে কেটে ধুয়ে রাখতে হবে। তারপর একটি পাত্রে তেল গরম করে তাতে পেয়াজ কুচি ভাঁজতে হবে। একটু বাদামী রং হয়ে এলে পরিমান মত হলুদ, ধনেগুড়া, জিরার গুড়া, লবন ও সামান্য নারকেল দুধ দিতে হবে। সম্পূর্ণ রান্নাটাই করতে হবে ন...